আমাদের ওয়েবসাইট www.womeneye24.com আপডেটের কাজ চলছে। সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা দু:খিত
লাইফ স্টাইল

ব্যায়াম ছাড়াই ঘরোয়া উপায়ে ওজন কমানোর কৌশল

ওমেনআই প্রতিবেদক : করোনাকালের দীর্ঘ লকডাউনে বাইরে যাওয়ার সুযোগ কম থাকায় অনেকেই শরীরে বাড়তি ওজন যুক্ত করেছেন। কাজের ব্যস্ততা ও সুযোগের অভাবে ইচ্ছা থাকলেও প্রতিদিন জিমে ২ ঘণ্টা ঘাম ঝরানো সম্ভব হয় না অনেকেরই। তবে ঘরোয়া উপায়ে দৈনন্দিন লাইফস্টাইল ও ডায়েটে পরিবর্তন আনলেই উল্লেখযোগ্য মাত্রায় ওজন কমানো যায়।

নিয়মিত পানি পান করুন
পানি পান করা যে উপকারী এটা সবাই জােি। নিয়মিত পানি পান করলে অনেক শারীরিক জটিলতা হ্রাস পায়। বাড়তি ওজনের ক্ষেত্রেও তাই। ওজন কমাতে চাইলে নিয়মিত পানি পান করা হলো প্রথম পদক্ষেপ। পানি শরীরকে শুধু আর্দ্রই রাখে না বরং বিপাক ক্রিয়ার দারুণ উন্নতি ঘটায়। পানি পান করলে বেশি সময় ক্ষুধামুক্ত থাকা যায় ফলে খাবার গ্রহণের পরিমাণ কমে।
চিনি খাওয়া বাদ দিন
চিনি খাওয়া বাদ দেওয়ার অর্থ হলো চিনি ও চিনিসমৃদ্ধ সকল খাবার গ্রহণ বাদ দিতে হবে। যাদের চিনি বা চিনিসমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার অভ্যাস তারা আস্তে আস্তে চিনি গ্রহণের পরিমাণ কমিয়ে নিন। চিনি উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার যা পোড়াতে হলে প্রচুর শারীরিক পরিশ্রমের প্রয়োজন হয়। যেহেতু আপনি শারীরিক পরিশ্রম ছাড়াই ওজন কমাতে চান তাই চিনি গ্রহণ কমানোর বিকল্প নেই। তাছাড়া কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, চিনি বিপাক ক্রিয়া ধীর করে দেয়। চিনি হৃদপিণ্ডের নানা জটিলতারও কারণ হয়।
প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার বাড়িয়ে দিন
ডায়েট তালিকা থেকে চিনিযুক্ত খাবার বাদ দিয়ে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার বাড়িয়ে দিন। ডাল, ডিম, সয়া জাতিয় খাবার রাখুন প্রতিদিনের ডায়েট তালিকায়। প্রোটিন আপনাকে দীর্ঘক্ষণ ক্ষুধামুক্ত রাখবে এবং অতিরিক্ত ক্ষুধা দূর করবে।
হাঁটুন
প্রতিদিন সকাল বা সন্ধ্যায় ৪৫ মিনিট হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুলুন। ৪৫ মিনিট সময় না হলে অন্তত আধা ঘণ্টা হাঁটুন। হাঁটলে শরীরের অভ্যন্তরীণ নানা অঙ্গের ব্যায়াম হয় এতে বিপাক ক্রিয়ার উন্নতি ঘটে। প্রতিবার খাবার গ্রহণের পর ১ হাজার কদম হাঁটার চেষ্টা করুন। জেনে রাখুন, ওজন কমাতে চাইলে এটাই সবচেয়ে কার্যকর টিপস।
খাবার ভালো করে চিবিয়ে খান
খাবার ২০ থেকে ৩০ বার চিবিয়ে খেতে হবে। এতে খাবার সহজে হজমযোগ্য হয়ে উঠে। এছাড়া যথেষ্ট চিবালে খাবারের ক্যালরির পরিমাণ হ্রাস পায়। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, যারা খাবার কম চিবিয়ে খান তাদের ওজন বাড়ে।

সা/১৬/৯/১৮.১৩

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close