আমাদের ওয়েবসাইট www.womeneye24.com আপডেটের কাজ চলছে। সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা দু:খিত
শিল্প-সংস্কৃতি

সাহিত্য ও সাংবাদিকতার বাতিঘর ছিলেন রাহাত খান

ওমেনআই প্রতিবেদক : ‘সাহিত্যের পাশাপাশি রাহাত খান ছিলেন সাংবাদিকতার বাতিঘর। তার হাত ধরেই সমৃদ্ধ হয় সাহিত্য ও সাংবাদিকতার সৃষ্টিশীল ভুবন। চিন্তা ও চেতনায় তিনি ছিলেন স্পষ্ট। সারা জীবন তিনি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের কথা বলতেন এবং সেটাই লিখে গেছেন।

রাহাত খান সারা জীবন তার আদর্শকে সমুন্নত রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর যে কয়েকজন মানুষ সাহসের সঙ্গে তাকে নিয়ে বলতেন তার মধ্যে তিনি একজন। তার চলে যাওয়া এদেশের সাহিত্য ও সাংবাদিক- দুটো দিকের জন্যই ক্ষতি হয়ে গেল। আর এই ক্ষতি পূরণ হওয়ার নয়।’

সদ্যপ্রয়াত সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক রাহাত খানের স্মরণসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন তাকে নিয়ে এমন মূল্যায়ন করেন।

বুধবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে এই স্মরণসভার আয়োজন করে বিশাল বাংলা প্রকাশনী ও নাট্যসভা।

অভিনেতা পীরজাদা শহীদুল হারুনের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন সরগম সম্পাদক কাজী রওনক হোসেন, এটিএন বাংলার সেলস অ্যান্ড মার্কেটিংয়ের দায়িত্বরত মীর মো মোতাহার হোসেন, ড. নাসরিন জামিল প্রমুখ।

ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ‘রাহাত ভাই ছিলেন এদেশের সাহিত্য ও সাংবাদিকতার বাতিঘর। অনেক বড় মাপের মানুষ হয়েও তিনি ছিলেন বিনয়ী ও নিরহংকারী। তিনি ছিলেন আমার সম্পাদক। রাহাত খান আমাকে বোনের মতো জানতেন। বলতেন আমার আট বোন আছে, তুমিসহ এখন আমার নয় বোন।’

জ্যেষ্ঠ এই সাংবাদিক বলেন, ‘৭৫ এর ১৫ আগস্টে জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার পর যখন অনেকেই কথা বলার সাহস করেনি তখন রাহাত ভাই এ বিষয়ে কলম ধরেছেন।’

তিনি বলেন, ”আমি তার লেখারও ভক্ত। ‘অমল-ধবল-চাকরি, হে অনন্তের পাখি’ ঈদ সংখ্যায় তার এই লেখাগুলো পড়ার জন্য উদগ্রীব থাকতাম।”

রাহাত খানের সর্বশেষ জন্মদিন নিয়ে স্মৃতিচারণ করে ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ‘১৯ ডিসেম্বর ছিল রাহাত খানের জন্মদিন। জাতীয় প্রেসক্লাব ও আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে গত বছর ২২ ডিসেম্বর আমরা প্রেসক্লাবে তার জন্মদিন পালন করি। সাংবাদিকতার আগে তিনি শিক্ষকতার সাথে যুক্ত ছিলেন। ওই জন্মদিনে তার অনেক ছাত্রও ছিলেন। তিনি অনেক মজা করেছিলেন। জন্মদিন ঘিরে আমরা অনেক সুন্দর সময় কাটিয়েছিলাম। কিন্তু কে জানতো সেটাই হবে তার জীবনের শেষ জন্মদিন।’

রাহাত খানের অপ্রকাশিত লেখাগুলো প্রকাশ করে সাহিত্যাঙ্গনে তাকে জাগরুক রাখার জন্য এসময় স্মরণসভার আয়োজক শহীদুল হক খানসহ অন্যদের আহ্বান জানান জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন।

মা/৯/৯২১.৩৯

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close