আমাদের ওয়েবসাইট www.womeneye24.com আপডেটের কাজ চলছে। সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা দু:খিত
ইতিহাসের সাহসী নারী

স্বাধীনতা সংগ্রামী ও সাম্যবাদী নেত্রী অপর্ণা পাল চৌধুরী

ওমেনআই প্রতিবেদক:
অপর্ণা পাল চৌধুর্রী ১৯২২সালে বাংলাদেশের সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একজন ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রামী ও সাম্যবাদী নেত্রী।
ছাত্রাবস্থায় বিপ্লবী রাজনীতির সাথে যোগ দিয়েছিলেন অপর্না। ১৯৪০ এর ছাত্র আন্দোলনে জড়িত ছিলেন। ছাত্রী বিভাগের সম্পাদিকা ছিলেন । শহরে ও গ্রামে মহিলা সমিতি গড়ার কাজ শুরু করেন ঐ সময় থেকেই।
১৯৪২ সালে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যপদ লাভ করেছিলেন তিনি। ১৯৪৯ সাল পর্যন্ত কমিউনিষ্ট পার্টি ও কৃষক সমিতির সহযোগিতায় বৃহত্তর সিলেটের বিভিন্ন থানায় বহু কৃষক নানকার আন্দোলনে অংশ নেয়। সামন্তপ্রথা বিরোধী এই নানকার বিদ্রোহের কেন্দ্রস্থল ছিল বিয়ানীবাজার থানার শানেশ্বর এলাকা । অপর্না পাল চৌধুরী ছিলেন নানকার বিদ্রোহের প্রধান নেত্রী।
নানকার বিদ্রোহীদের দমন করতে সরকার তীব্র দমনপীড়ন চালাতে থাকে। এই আক্রমণ প্রতিরোধ করতে অন্যান্য সহকর্মীর সাথে তিনিও এগিয়ে যান। ১৮ আগস্ট ১৯৪৯ রাইফেলধারী পুলিশের গুলিতে ছয়জন শহীদ হন। অপর্না দেবী অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন, পুলিশের অত্যাচারে তার গর্ভপাত হয়ে যায় । তাকে গ্রেপ্তার করে অমানসিক অত্যাচার চালালে তিনি পঙ্গু হয়ে যান। শ্রীহট্ট, রাজশাহী ও ঢাকা জেলে ৫ বছর বন্দিি ছিলেন।
তার শারিরীক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ হলে তাকে মুক্তিদেয়া হয় ১৯৫৪ সালে । পরে তিনি পশ্চিমবঙ্গে চলে যান। ১৯৬৪ তে কমিউনিস্ট পার্টি বিভক্ত হলে স্বামী সুরথ পাল চৌধুরীর সাথেই ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী)তে যোগদান করেন।
পার্টির বিভিন্ন নারী সংগঠনের সদস্য ছিলেন। তিনি শিক্ষকতা করতেন। তার রচিত গ্রন্থের নাম ‘নারী আন্দোলন: স্মৃতিকথা’।
১৯৯২ সালের ৬ আগষ্ট সংগ্রামী এই নারীর জীবনাবসান ঘটে।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close