রাজনীতি

ঢাকা-১৮ আসনে উপনির্বাচনে লড়বেন বিদিশা

ওমেনআই ডেস্ক : ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে লড়বেন জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মরহুম হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা সিদ্দিক। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থীরা দলীয় প্রচার-প্রচারণা অব্যাহত রাখলেও এখনো সাড়া-শব্দ নেই জাপার মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থীদের। এর মধ্যেই আনুষ্ঠানিকভাবে না হলেও বিদিশার সমর্থকরা জানিয়েছেন ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

এদিকে আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ও হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে ঢাকা-১৮ ও ঢাকা-৫ আসন শূন্য হয়। এর মধ্যে মধ্য আগস্ট বা আগস্টের শেষ সপ্তাহে ঢাকা-৫ আসনে উপ-নির্বাচনের তফসিলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে সম্প্রতি জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর। এরও পরে আলোচনা হবে ঢাকা-১৮ আসনের বিষয়ে জানান তিনি।

অপরদিকে বিদিশার সমর্থকরা জানিয়েছেন, উপ-নির্বাচনে অনেকের নাম শোনা গেলেও শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে বিদিশার নামই শোনা যাচ্ছে বেশি, যদি সরকারের সদিচ্ছা থাকে তাহলে বিদিশার বিকল্প কোনো প্রার্থীই সে আসন থেকে জয় লাভ করা খুব দূরূহ হবে।

বিদিশার একজন ঘনিষ্টজন জানিয়েছেন, ইদানীং সবচেয়ে বেশি সাহায্য-সহযোগিতা করে যাচ্ছেন মানবতাবাদী নেত্রী বলে খ্যাত বিদিশা এরশাদ। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টির কিছু নেতাদের মুখেও শোনা যাচ্ছে এ আসন থেকে নির্বাচন করতে পারেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের সহধর্মিণী শরিফা কাদের, কিন্তু নির্বাচনের মাঠে তার কোনো পরিচিতি নেই। তিনি মনে করেন তাই নির্বাচন বিশ্লেষণীবোদ্ধাদের ধারণা যদি শরিফা কাদেরকে প্রার্থী করা হয় তাহলে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

এরশাদ ট্রাস্টের একজন প্রভাবশালী সদস্য গতকাল বলেন, এই মুহূর্তে সরকার যদি কিছুটা কৌশল অবলম্বন করেন তাহলে বিদিশাকে নিজ গৃহে নিয়ে জাতীয় পার্টির ভবিষ্যৎ নেতৃত্বে সক্রিয় করতে পারেন। যার ফলে আগামী দিনের জাতীয় পার্টির নেতৃত্ব ও সরকারের বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় পার্টির ভূমিকা থাকবে গতিশীল এমনটাই ভাবছেন অনেক বুদ্ধিজীবীরা বলেও জানান ট্রাস্টের এ সদস্য। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা প্রসঙ্গে বিদিশা সিদ্দিককে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি গতকাল বিকেলে বলেন, জাতীয় পার্টি নেতাকর্মী ও সুশীল সমাজের লোকজন আমাকে চাপ দিচ্ছে আমি যেন ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচন অংশ নিয়ে বিজয়ী হই। আমাকে তো জাপার নেতাকর্মীদের দিকে তাকাতে হবে। তাহলে কি আপনি নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন প্রশ্ন করা হলে বিদিশা আরো বলেন, তা অসম্ভব কিছু না।

অন্যদিকে একাধিক সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদের সঙ্গে বিদিশার সম্পর্ক এখন গভীর। তিনিও চাইছেন জাতীয় পার্টির ছায়াতলে আসুক বিদিশা। বিভিন্ন বিষয়ে রওশন এরশাদ বিদিশার সঙ্গে নিয়মিত আলাপচারিতাও চালিয়ে যাচ্ছেন। ফোন করে দুজন-দুজনার খোঁজ-খবরও রাখছেন। নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়টিও ইতিবাচক হিসেবে দেখছে জাতীয় পার্টির ঘাঁটি বলে পরিচিত রংপুরের তৃণমূলের নেতারাও।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে দ্বিতীয় স্ত্রী বিদিশাকে তালাক দেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ওই সময় জাতীয় পার্টির সদস্যপদ থেকে বিদিশাকে বাদ দেয়া হয়। তালাক হওয়ার পর ছেলে এরিখ এরশাদকে নিয়ে ছিলেন বিদিশা। গত বছর এরশাদের মৃত্যু হওয়ার কিছুদিন পর ছেলে এরিখকে নিয়ে প্রেসিডেন্ট পার্কে বসবাস শুরু করছেন বিদিশা। এরশাদ ট্রাস্ট থেকে অর্জিত আয়ে এরিখের খরচ নির্বাহ করা হয়। ২০১৯ সালে এরশাদ নিজের নামে ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করেন। মৃত্যুর আগে তার সম্পত্তি ট্রাস্টের নামে উইল করে যান।

আরও পড়ুন

Back to top button
Close
Close