সাহিত্য

কালো নারীর কাব্য

শান্তা মারিয়া

আমি কালো
নিকষ আঁধার, দুর্বাঘন, তমালবরণ।
আমার শরীরে কোনো আর্যরক্ত নেই।
সহজসাধক, চর্যানারী আমি,
শ্যামাকন্যা, শরণ করিনি কোনো আরব পুরুষ।
আমি কালী, রণচণ্ডী, বিশালাক্ষী,
এলোকেশী, শ্যামলকুমারী
কালো রং আমার গৌরব।
স্পর্শ করিনি কোনো মগদস্যু, বর্বর, হার্মাদ।
বর্গী, ঠগী, মোগল, পাঠান, নীলকর, শ্বেতাঙ্গ পুরুষ
আমার প্রেমিক নয়।
মাতঙ্গিনী ভূমিকন্যা আমি,
কৈবর্ত, কৃষক, মালো, অনার্যপুরুষ কণ্ঠে
বরমাল্য করেছি স্থাপন।
সিঁদুর, নূপুর, শাড়িতে, শাঁখায়
প্রদীপ্ত উজ্জ্বল শ্যামল মাটির প্রেম।
ঝড়ের মেঘের সাথে আমার আলাপ
আমি কালো, শ্যামবর্ণা, পললজননী।
চন্দ্রকোট, সোমপুর,পুণ্ড্রধাম, ময়নামতির প্রাচীন বেদীতে
জ্বলে আমার আরতি, অর্ঘ্যশিখা স্তূপপদমূলে।
দেবভাষা, বেদগ্রন্থ, কিতাব পড়িনি
প্রাকৃতরমণী আমি।
সীতা, সতী, সাবিত্রী কখনো নয়,
বেহুলা, ফুল্লরা, শ্যামলী আমার নাম
লখীন্দর, কালকেতু আমার প্রেমিক।
মাদলের ধ্বনি নাচে রক্তের প্রবাহে
চড়কে, বৈশাখে, দোলযাত্রা, রাস পূর্ণিমায়,
অঘ্রাণ পার্বণে প্রাণের গভীরে বাজে
আদিম ফসলী গীত, হাতে জ্বলে লক্ষ্মীর প্রদীপ।
আমি মহুয়া, মলুয়া, চন্দ্রাবতী, ভেলুয়া সুন্দরী
আদিম বাঙালি নারী
রাঢ়, বঙ্গ, হরিকেল, গৌড়, সমতটে
শঙ্খপাড় নদীর কিনারে
অনন্ত জনম ধরে বসতি করেছি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

Close
Back to top button
Close
Close